লোয়ার অর্ডারে ‘ব্যতিক্রমী’ ব্যাটিং, চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ বাংলাদেশের

0
869

শুরুতেই ব্যাটিং ধস, মাঝে দুয়েকটি ভালো জুটি বা ইনিংস এবং শেষের দিকে আবার ধস; পুরো এশিয়া কাপে বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ের চিত্র ছিল এমনই। তবে ভারতের বিপক্ষে দেখা গেল ব্যতিক্রম। এদিন শুরুতে বিপর্যয়ে পড়ার পর মাঝখানে সাকিব আল হাসান ও তাওহীদ হৃদয় দারুণ জুটিতে দলকে এগিয়ে দেন। তাদের বিদায়ে বাংলাদেশের দ্রুতই গুটিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা দেখা দিলেও নাসুম আহমেদ ও শেখ মেহেদীর বুদ্ধিদীপ্ত ব্যাটিংয়ে ভারতকে ২৬৬ রানের চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য দিয়েছে বাংলাদেশ।

সুপার ফোরে নিয়মরক্ষার এই ম্যাচেও শুরুতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ের ধারা অব্যাহত ছিল। ৫৯ রান তুলতেই টাইগাররা হারিয়ে বসে ৪ উইকেট। একে একে ফিরে যান লিটন দাস, তানজিদ তামিম, এনামুল হক বিজয় এবং মেহেদী হাসান মিরাজ। তবে এরপর সাকিব আল হাসান ও তাওহীদ হৃদয়ের শতরানের জুটিতে বড় সংগ্রহের পথেই যাচ্ছিল বাংলাদেশ। তবে ১৬০ রানের মাথায় সাকিব ফিরলে ভাঙে ১০১ রানের জুটি। ৮৫ বলে ৬ চার ও ৩ ছক্কায় ৮০ রান করে আউট হন বাংলাদেশ অধিনায়ক। দলের সঙ্গে আর ১ রান যোগ হতেই ব্যর্থতার ধারা অব্যাহত রেখে ফেরেন শামীম পাটোয়ারি।

এরপর ভালোই এগোচ্ছিল হৃদয়-নাসুম জুটি। ১৯৩ রানে সপ্তম ব্যাটার হিসেবে হৃদয় (৫৪) ফিরলে অল্প রানেই গুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কা দেখা দেয়। তবে সব শঙ্কা উড়িয়ে দেন নাসুম ও মেহেদী। ৪৫ রানের জুটি গড়েন তারা। তবে ২৩৮ রানের মাথায় নাসুম ফিরলে ভাঙে এ জুটি। ৬ চার ও ১ ছক্কায় ৪৫ বলে ৪৪ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন নাসুম। শেষদিকে ৮ বলে ১৪ রানের দারুণ ইনিংস খেলেন এই ম্যাচেই অভিষিক্ত তানজিম হাসান সাকিব। আর শেষ পর্যন্ত ২৩ বলে ২৯ রানে অপরাজিত থাকেন মেহেদী। তাতে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৬৫ রান করে বাংলাদেশ।

টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ ইতোমধ্যে বিদায় নিয়েছে। তবে আগেই ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে ভারত। বাংলাদেশ একাদশে আজ আন্তর্জাতিক অভিষেক হয়েছে তানজিম হাসান সাকিবের। এছাড়া তানজিদ হাসান তামিম, এনামুল হক বিজয়, নাসুম আহমেদ ও মোস্তাফিজুর রহমান জায়গা পেয়েছেন। বাদ পড়েছেন মোহাম্মদ নাঈম, তাসনিক আহমেদ, হাসান মাহমুদ। দেশে ফেরা মুশফিকুর রহিম নেই। অন্যদিকে টসের সময় দলে পাঁচটি পরিবর্তনের কথা জানিয়েছেন ভারতের অধিনায়ক রোহিত শর্মা।

এফএস

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here