বিশ্বকাপ আয়োজন করতে চায় সৌদি আরব

0
144

আরও একটি বিশ্বকাপ আয়োজনে আগ্রহী এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন (এএফসি)। এজন্য আগামী ২০৩০ অথবা ২০৩৪ সালে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরবে বিশ্বকাপ আয়োজন করতে চায় তারা। এএফসির সভাপতি শেখ সালমান বিন ইব্রাহিম আল-খালিফা এ কথা জানিয়েছেন।

১৯৩০ সালের শুরু হয় ফুটবল বিশ্বকাপ। যার মধ্যে এ পর্যন্ত দুইবার এশিয়ায় বিশ্বকাপ আয়োজিত হয়েছে। সর্বপ্রথম ২০০২ সালে দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানে যৌথভাবে আয়োজন করা হয়েছিল বিশ্বকাপের। আর সবশেষ আসর ২০২২ সালে কাতারে অনুষ্ঠিত হয় ‘দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’।

গত ২২ মে সিরিয়া ও লেবানন সফরে গিয়ে যান এএফসির সভাপতি শেখ সালমান। সফরকালে বৈরুতে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন তিনি। সেখানেই বাহরাইনের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘আমি মনে করি এই ধরনের টুর্নামেন্ট আয়োজনের সব ধরনের যোগ্যতা সৌদি আরবের রয়েছে।’

বিশ্বকাপ আয়োজনের বিষয়ে সালমান বলেন, ‘আমাদের সঠিক সময় বেছে নিতে হবে, সেটা হতে পারে ২০৩০ কিংবা ২০৩৪। তবে ২০৩৪ সালে হলে সেটা বেশি ভালো হবে। আমরা সেটার দিকেই তাকিয়ে আছি। তবে ২০৩০’এ যদি পরিস্থিতি অনুকুলে থাকে তবে তার জন্যও আমরা প্রস্তুত আছি।’

২০২৬ বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো অংশগ্রহণ করবে ৪৮ দল। যা যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও মেক্সিকোতে যৌথভাবে আয়োজিত হতে যাচ্ছে। ইতোমধ্যেই ২০৩০ বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য দুটি যৌথ বিডের প্রস্তাব রয়েছে- স্পেন, পর্তুগাল ও মরক্কো মিলে একটি এবং আর্জেন্টিনা, চিলি, উরুগুয়ে ও প্যারাগুয়ে মিলে আরও একটি।

এদিকে গত সেপ্টেম্বরে মিশরীয় যুব ও ক্রীড়ামন্ত্রী মুহাম্মদ ফাওজির পক্ষে এক মুখপাত্র জানিয়েছিলেন বিশ্বকাপে আয়োজনে সৌদি আরব ও গ্রিস যৌথ বিডে অংশ নিতে চায়। তবে গত ফেব্রুয়ারিতে প্রার্থিতা সম্পর্কিত কোনো ফাইল জমা দেয়নি বলে জানান সৌদি ক্রীড়ামন্ত্রী প্রিন্স আব্দুলাজিজ বিন তুরকি আল ফয়সাল।

শেখ সালমান জানিয়েছেন, তিনি আগে নিশ্চিত হতে চান যেকোনো বিডে এএফসি সমন্বিত আছে এবং তাদের পূর্ণ সমর্থন আছে। এএফসি সভাপতি বলেন, ‘আমরা কন্টিনেন্টাল ফেডারেশন ও ফিফার সঙ্গে সমন্বয় করছি। যেকোনো দেশের সঙ্গে যৌথ বিডে যাবার জন্য সব ধরনের সমঝোতার বিষয়টিও আমরা বিবেচনা করছি যাতে দ্রুত একটি ফাইল উপস্থাপন করা যায়। অন্তত ৯০ ভাগ সফলতা নিশ্চিত করেই আমরা সবকিছু করতে চাই। আমাদের হাতে ৪৭টি ভোট আছে, যেখানে বিশ্বকাপের স্বাগতিক হতে হলে ১১০ ভোটের প্রয়োজন হয়। অন্যান্য মহাদেশীয় সমর্থন আমাদের প্রয়োজন। এজন্য আমাদের আরও কাজ করতে হবে।’

‘ভিশন ২০৩০’-কে সামনে রেখে মধ্যপ্রাচ্যের তেল সমৃদ্ধ তিন দেশ কাতার, সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত ক্রীড়াঙ্গনে বিপুল পরিমান অর্থলগ্নি করেছে।

২০২৬ এএফসি উইমেন্স কাপ, ২০২৭ সালে প্রথমবারের মতো এশিয়ান কাপ, ২০৩৪ সালে এশিয়ান গেমস ও ২০২৯ সালে এশিয়ান উইন্টার গেমস সৌদি আরবে অনুষ্ঠিত হবে।

এফএস

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here