Saturday, February 24, 2024
Homeজাতীয়ফার্নেস অয়েলের দাম বাড়ল ১৫%

ফার্নেস অয়েলের দাম বাড়ল ১৫%

মানুষের জন্য ডেস্ক: ফার্নেস অয়েলের দাম আবার বাড়িয়েছে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি)। সংস্থাটি সোমবার দাম ১৪.৮৬ শতাংশ বৃদ্ধি করেছে। প্রতি লিটারের দাম ৭৪ টাকা থেকে ১১ টাকা বেড়ে ৮৫ টাকা হয়েছে। এতে খরচ বাড়বে সরকারি বিদ্যুৎকেন্দ্রের।

গত ২৫ মার্চ ১৯.৩৫ শতাংশ দাম বেড়েছিল বিদ্যুৎকেন্দ্রে বেশি ব্যবহূত এই জ্বালানি তেলের। তখন প্রতি লিটারের দাম ৬৫ টাকা থেকে বেড়ে ৭৪ টাকা হয়। এর আগে গত বছরের ৫ নভেম্বর প্রতি লিটারে ১৬.৯৮ শতাংশ বেড়ে দাম হয়েছিল ৬৫ টাকা। বেসরকারি বিদ্যুৎকেন্দ্রের মালিকদের আমদানি করা ফার্নেস অয়েলের দাম এখনও লিটার প্রতি ৭৬ টাকার বেশি পড়ছে না।

ফার্নেস অয়েল প্রধানত বিদ্যুৎকেন্দ্রে ব্যবহৃত হয়।

ডিজেল, কেরোসিন, অকটেন ও পেট্রোলের দাম জ্বালানি বিভাগের নির্বাহী আদেশে বাড়ানো হয়। গত ৫ আগস্ট এক গেজেটে এই চারটি জ্বালানির দাম রেকর্ড ৪৭ শতাংশ বৃদ্ধি করা হয়। ফার্নেস অয়েল, জেড ফুয়েলসহ কিছু পেট্রোলিয়াম পণ্যের মূল্য বিপিসি নিজেরাই হ্রাস-বৃদ্ধি করে।

পেট্রোলিয়াম পণ্যের দাম বৃদ্ধির এই প্রক্রিয়াকে আইনবহির্ভূত বলছেন কনজ্যুমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলদেশের (ক্যাব) জ্বালানি উপদেষ্টা অধ্যাপক শামসুল আলম। তিনি বলেন, এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) আইন ২০০৩ অনুসারে জ্বালানি পণ্যের গ্রাহক পর্যায়ে দাম বাড়ানোর ক্ষমতা বিইআরসির। কিন্তু জ্বালানি তেলের ক্ষেত্রে এই আইন মানা হচ্ছে না। নির্বাহী আদেশে কোনো গণশুনানি ছাড়াই বারবার জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানো হচ্ছে। এটা আইনবহির্ভূত।

ফার্নেস অয়েল প্রধানত বিদ্যুৎকেন্দ্রে ব্যবহৃত হয়। এ ছাড়া কিছু শিল্পকারখানাও এ তেলের ক্রেতা। দেশে বছরে ফার্নেস অয়েলের চাহিদা প্রায় ৩৫ লাখ টন। এর মধ্যে বেসরকারি বিদ্যুৎকেন্দ্রের মালিকরা নিজেরাই ৩২ লাখ টন আমদানি করে। বাকিটা বিপিসি আমদানি করে থাকে।

বর্তমানে দেশে ৫ হাজার ৭০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদিত হয় ফার্নেস অয়েল চালিত কেন্দ্র থেকে। এর মধ্যে বেসরকারি বিদ্যুৎকেন্দ্রের ক্ষমতা ৪ হাজার ৫০০ মেগাওয়াট এবং সরকারি কেন্দ্রের এক হাজার ২০০ মেগাওয়াট। বিপিসি ফার্নেস অয়েলের দাম বাড়ানোর ফলে সরকারি বিদ্যুৎকেন্দ্রের খরচ বাড়বে। কারণ তারা বিপিসির কাছ থেকে তেল কিনে থাকে।

বেসরকারি বিদ্যুৎকেন্দ্রের মালিকরা নিজেরা যে ফার্নেস অয়েল আমদানি করেন তার দাম এখনও ৭৫-৭৬ টাকা পড়ছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ইন্ডিপেন্ডেন্ট পাওয়ার প্রডিউসারস অ্যাসোসিয়েশনের (বিপ্পা) সভাপতি ইমরান করিম।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments