প্রেমিকাকে পাস করাতে মেয়ে সেজে পরীক্ষার হলে প্রেমিক

0
79

কপালে টিপ, ঠোঁটে লিপস্টিক এবং হাতে চুড়ি দিয়ে এবার এক প্রেমিক গেলে পরীক্ষা হলে। প্রেমিকা যেন পরীক্ষায় পাস করতে পারেন, তাই নিজেই মেয়ে সেজে পরীক্ষা দিতে গিয়েছিলেন ওই তরুণ। যাবতীয় প্রস্তুতি নিয়েই পরীক্ষার হলে গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু শেষমেশ ধরা পড়লেন তিনি। গার্লফ্রেন্ডের ছদ্মবেশ নিয়ে কর্মকর্তাদের বোকা বানানোর চেষ্টায় হাস্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। চাঞ্চল্যকর ওই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যের ফরিদকোট এলাকায়।

কপালে টিপ, ঠোঁটে লিপস্টিক এবং হাতে চুড়ি দিয়ে এবার এক প্রেমিক গেলে পরীক্ষা হলে। প্রেমিকা যেন পরীক্ষায় পাস করতে পারেন, তাই নিজেই মেয়ে সেজে পরীক্ষা দিতে গিয়েছিলেন ওই তরুণ। যাবতীয় প্রস্তুতি নিয়েই পরীক্ষার হলে গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু শেষমেশ ধরা পড়লেন তিনি। গার্লফ্রেন্ডের ছদ্মবেশ নিয়ে কর্মকর্তাদের বোকা বানানোর চেষ্টায় হাস্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। চাঞ্চল্যকর ওই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যের ফরিদকোট এলাকায়।

পাঞ্জাবের ফরিদকোটের একটি পরীক্ষা কেন্দ্রে এক যুবক তার গার্লফ্রেন্ডের ছদ্মবেশ নিয়ে পরীক্ষা দিতে গিয়েছিলেন। তবে ধরা পড়ার পর তার সে চেষ্টা কার্যত হাস্যকর দৃশ্যে পরিণত হয়েছে। অভিযুক্ত ওই প্রেমিকের নাম আংরেজ সিং। তিনি তার প্রেমিকা পরমজিৎ কৌরের ছদ্মবেশ নিয়ে পরীক্ষার হলে গিয়েছিলেন।

প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, প্রেমিকা যেন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পারেন, তাই লাল চুড়ি, টিপ, লিপস্টিক এবং মেয়েদের স্যুট পরে আংরেজ সিং পরীক্ষা দিতে গিয়েছিলেন। আইডি কার্ডসহ যাবতীয় নথি জোগাড় করে রেখেছিলেন আগে থেকেই।

কিন্তু পরীক্ষা দেওয়ার আগে বায়োমেট্রিক যন্ত্রে ওই ব্যক্তির আঙুলের ছাপ আসল পরীক্ষার্থীর আঙুলের ছাপের সঙ্গে মেলেনি। আর এতেই ধরা পড়েন সেই তরুণ। পরে মিথ্যা পরিচয় দিয়ে পরীক্ষা দেয়ার অভিযোগে আংরেজকে গ্রেপ্তার করে পাঞ্জাব পুলিশ।

সংবাদমাধ্যমটি বলছে, গত ৭ জানুয়ারি ফরিদকোট জেলার কোটকাপুরার ডিএভি পাবলিক স্কুলে স্বাস্থ্যকর্মী নিয়োগের পরীক্ষা চলাকালীন এই ঘটনা ঘটে। পরীক্ষার আগে মেয়েদের বেশে ছবি তুলে পরমজিতের নামে নকল পরিচয়পত্র তৈরি করিয়ে নেন আংরেজ।
এছাড়া পরমজিৎ যেন ভালো নম্বর নিয়ে উত্তীর্ণ হতে পারেন, তাই নিজেই পরীক্ষা দিতে যান আংরেজ। কিন্তু পরীক্ষা শুরু হওয়ার আগে বায়োমেট্রিক যন্ত্রে ধরা পড়ে যান আংরেজ। সঙ্গে সঙ্গে পরমজিতের ফর্মও বাতিল করে দেয়া হয়। বিষয়টিকে আরো খতিয়ে দেখে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here