প্রকাশ্যে কিশোরীর মা-বাবাকে লাঠিপেটার ঘটনায় গ্রেপ্তার ৪

0
453

মানুষের জন্য ডেস্ক: কুমিল্লার দেবিদ্বারে ধর্ষণচেষ্টার মামলা তুলে না নেওয়ায় এক কিশোরী ও তার মা-বাবাকে প্রকাশ্যে লাঠিপেটার ঘটনায় চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে ও আজ শুক্রবার ভোরে জেলার বিভিন্ন জায়গায় র‌্যাব-পুলিশের যৌথ অভিযানে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। তবে এ ঘটনার মূল আসামি কাউছার ও হাসানকে এখনও গ্রেপ্তার করা যায়নি।

গ্রেপ্তার আসামিরা হলেন- উপজেলার কুরছাপ গ্রামের মৃত আলী হোসেনের ছেলে মো. নুরুল ইসলাম (৬৮) ও মো. মোস্তফা কামাল (৬১), কাউছারের স্ত্রী মোসা. নারগিছ বেগম (৩০) এবং আটক মোস্তাফা কামালের স্ত্রী মোসা. কুলছুম বেগম। এর আগে গতকাল বৃস্পতিবার রাতে নির্যাতনের শিকার ওই কিশোরীর বাবা মো. জামাল হোসেন ছয়জনের নাম উল্লেখ করে দেবিদ্বার থানায় একটি হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করেন।

মামলার বিবরণ ও র‌্যাবের প্রেসবিজ্ঞপ্তি সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার সুলতানরপুর ইউনিয়নের কুরছাপ পূর্বপাড়ায় গত জুনের প্রথম দিকে মো. নুরুল ইসলামের ছেলে মো. হাসান একই বাড়ির এক কিশোরীকে খালি ঘরে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালান। পরে এ ঘটনা জানাজানি হলে ওই কিশোরীর বাবা ৯ জুন দেবিদ্বার থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার পর হাসানের পরিবার বাদীকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়ে আসছিলেন। মামলায় আপোস-মীমাংসা না করায় ক্ষিপ্ত হয়ে গত ২০ আগস্ট দুপুরে ওই কিশোরীর মাকে প্রকাশ্যে লাঠিপেটা করেন হাসানের বড় ভাই মো.কাউছার। যার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে মুহূর্তেই তা ভাইরাল হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মো. মাহবুবুর রহমান জানান, কুমিল্লা র‌্যাব-১১, সিপিসি-২ ও দেবিদ্বার থানা পুলিশের একটি টিম যৌথ অভিযান চালিয়ে মামলার চারজন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কুমিল্লা র‌্যাব-১১ হেফাহজতে তিনজন আসামি রয়েছেন এবং দেবিদ্বার থানায় রয়েছেন অপর একজন। ওই তিনজনকে দেবিদ্বার থানায় হস্তান্তর করা হবে।

এ ব্যাপারে কুমিল্লা র‌্যাব-১১, সিপিসি-২ উপ-পরিচালক মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেন বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নির্যাতনের একটি ভিডিও দেখে অভিযান চালিয়ে হত্যাচেষ্টা মামলার এজহারভুক্ত এক নারীসহ তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আর মূল আসামিদেরও গ্রেপ্তারের অভিযান চলমান থাকবে।’

এদিকে, দেবিদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আরিফুর রহমান বলেন, র‌্যাবের অভিযানে তিনজন ও দেবিদ্বার থানা পুলিশের অভিযানে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত মূল আসামিদের দ্রুত গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here