Monday, April 22, 2024
Homeঅর্থনীতিডলারের বিপরীতে টাকার মান আরও কমলো

ডলারের বিপরীতে টাকার মান আরও কমলো

মার্কিন ডলারের বিপরীতে আবারও মান হারালো টাকা। টাকার মান কমেছে দেড় টাকা। এতো দিন ১০৩ টাকায় ডলার বিক্রি হচ্ছিল। এখন প্রতি ডলার বিক্রি হচ্ছে ১০৪ টাকা ৫০ পয়সা। বুধবার বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর কাছে এ দামে ডলার বিক্রি করছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ১৫তম বারের মতো রিজার্ভ থেকে ডলার বিক্রির রেট বাড়ায় চলতি অর্থবছরে (২০২২-২৩) টাকার সবচেয়ে বড় অবমূল্যায়ন এটি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের একজন কর্মকর্তা জানান, বাজারের চাহিদা ও সরবরাহের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ক্রমান্বয়ে বিনিময় হার নির্ধারণের লক্ষ্যে টাকার মান কমানো হয়েছে। ধীরে ধীরে ডলারের সঙ্গে টাকার বিনিময় হার সমন্বয় করা হচ্ছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য মতে, এর আগে রিজার্ভ থেকে ডলার বিক্রির রেট সর্বোচ্চ ১ টাকা করে বাড়ানো হয়েছিল। চলতি অর্থবছরে ১৫ বারের মধ্যে ৮ বারই ডলারের দাম ১ টাকা করে বাড়িয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এর আগে গত এপ্রিলে রিজার্ভ থেকে ডলার বিক্রির রেট ১ টাকা বাড়ানো হয়েছিল। এছাড়া ২০২২ সালের ডিসেম্বর থেকে গত মার্চ পর্যন্ত সময়েও প্রতিমাসে ১ টাকা করে ডলারের দাম বেড়েছে। র্সূত্র: মানবজমিন

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুসারে, গত এক বছরে টাকার অবমূল্যায়ন হয়েছে ২১%; এর ফলে ডলারের রেট ৮৬.৪৫ টাকা থেকে বেড়ে ১০৪.৫০ টাকা হয়েছে।

গত প্রায় এক বছর ধরে দেশে ডলার সংকট চলছে। আমদানি বিল মেটাতে ব্যাংকগুলোর কাছে বেশি করে ডলার বিক্রি করছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। আমদানি ব্যয় মেটাতে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর কাছে ৫৬ মিলিয়ন ডলার বিক্রি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। সর্বশেষ বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ দাঁড়িয়েছে ৩০.৯৩ বিলিয়ন ডলার। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, বছরখানেক ধরে রিজার্ভ কমার ধারায়। ২০২২ সালের এপ্রিল শেষে রিজার্ভ ৪৪ বিলিয়ন ডলারের বেশি ছিল। সে হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে রিজার্ভ কমেছে ১৩ বিলিয়ন ডলারের বেশি। অবশ্য এর বড় অংশই রিজার্ভ থেকে ডলার বিক্রি করার কারণে।

এদিকে, চলতি মাসে প্রায় ১.১৫ বিলিয়ন ডলার ক্লিয়ারিং ইউনিয়নের (আকু) বিল পরিশোধ করতে হবে। এরপর রিজার্ভের পরিমাণ নামবে ২৯ বিলিয়ন ডলারে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য বলছে, চলতি অর্থবছরের জুলাই থেকে গত মঙ্গলবার পর্যন্ত রিজার্ভ থেকে ১১.৮৩ বিলিয়ন ডলার বিক্রি করা হয়েছে। এর আগে ২০২১-২২ অর্থবছরেও ৭.৬২ বিলিয়ন ডলার বিক্রি করা হয়েছিল।

বর্তমানে বাজারে ডলারের বেশ কয়েকটি রেটের প্রচলন আছে। এরমধ্যে এসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশ (এবিবি) ও বাংলাদেশ ফরেইন এক্সচেঞ্জ ডিলার্স এসোসিয়েশন (বাফেদা)-র সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এক্সপোর্ট প্রসিডে ১০৬ টাকা এবং রেমিট্যান্সে ১০৮ টাকা রেট দিচ্ছে ব্যাংক। এ ছাড়া ইন্টারব্যাংক এক্সচেঞ্জে ডলারের রেট ১০৭ টাকা। মঙ্গলবার ইমপোর্ট সেটেলমেন্টে গড়ে ১০৭ টাকা রেট ধরেছে ব্যাংকগুলো। যদিও ইমপোর্টাররা দাবি করেছেন, ব্যাংকগুলো তাদের কাছে ১১৩-১১৪ টাকা পর্যন্ত রেট নিচ্ছে।

এফএস

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments