জোড়া খুনের মামলায় জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ দুজন কারাগারে

0
265

মানুষের জন্য ডেস্ক: দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জোড়া খুনের (দুই ছাত্রকে হত্যা) মামলায় জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া জাকিরসহ দুইজনকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে দিনাজপুর সিনিয়র চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত-১ এ তারা জামিন নিতে গেলে আদালতের বিচারক ইসমাইল হোসেন জামিন না মঞ্জুর করে তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

কারাগারে পাঠানো আসামিরা হলেন- জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ফুলবাড়ী উপজেলার উত্তর সুজাপুর এলাকার লুৎফর রহমানের ছেলে জাকারিয়া জাকির এবং যুবলীগ নেতা ও জেলা শহরের উপশহর এলাকার মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেনের ছেলে সিরাজুল সালেকিন রানা। তারা উভয়েই সিআইডির চার্জশিটভুক্ত আসামি। গত বছরের ২৯ জুলাই আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীসহ ২৬ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেছিল সিআইডি।

দিনাজপুর আদালত পুলিশের পরিদর্শক মনিরুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘আদালতের আদেশের পর আসামিদেরকে কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।’

চার্জশিটে বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের তৎকালীন কমিটির সাধারণ সম্পাদক অরুন কান্তি রায় সিটনকে ভর্তি পরীক্ষায় জিডিটাল কারচুপির অভিযোগে বহিস্কার করলে নিয়োগ এবং বিভিন্ন প্রকল্পের আর্থিক বিষয় নিয়ে বনিবনা না হওয়ায় তৎকালীন ভিসি রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু করে ছাত্রলীগ।

অন্যদিকে ভিসির কাছে সুবিধা নেওয়ার জন্য ছাত্রলীগের পদ বঞ্চিত ও বিভিন্ন মতের বিশ্ববিদ্যালয়েরে কিছু ছাত্র স্থানীয় রাজনীতির সঙ্গে হাত মিলিয়ে ভিসির পক্ষ নিয়ে একটি নতুন গ্রুপ তৈরি করে ছাত্রলীগের আন্দোলন দমন করার জন্য। একপর্যায় তারা মারধর করে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদেরকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিতাড়িত করে। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিড়াড়িতরা তাদের আধিপত্য পুনুরুদ্ধারের চেষ্টা করে। ঘটনার দিন ২০১৫ সালের ১৬ এপ্রিল রাত ৮টার দিকে অডিটোরিয়াম-১ এ ভেটেরিনারী অনুষদের নবীনবরণ অনুষ্ঠানে দুটি মাইক্রোবাস ও কয়েকটি মটরসাইকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে ঢুকে পড়ে অডিটোরিয়ামে প্রবেশ করে ককটেল বিস্ফোরণ ও এলোপাতারি ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে।

এ সময় সেখানে বিদ্যুৎ চলে গেলে ভীতিকর পরিবেশ সৃর্ষ্টি হয়। সেখান থেকে ছাত্রলীগের অপর গ্রুপের নেতাকর্মীরা শেখ রাসেল হলে গিয়ে আবস্থান নেয়। হামলাকারীরা চারদিক থেকে শেখ রাসেল হল ঘেরাও করে হামরা চালায়। একপর্যায তারা শেখ রাসেল হলের কলাপসিবল গেটের তালা ভেঙে বিভিন্ন অস্ত্র নিয়ে এলোপাতাড়ি হামলা চালায়। সেখানেই দুই ছাত্র মারা যায়।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ১৬ এপ্রিল দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি অনুষদের নবীনবরণ অনুষ্ঠান চলাকালে রাত ৮ টার দিকে ছাত্রলীগের একটি গ্রুপ সশস্ত্র হামলা চালায়। এসময় তারা বেশ কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরন ও ফাঁকা গুলি করে এবং ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষকদের মারধর করে। এর জবাবে অপর একটি গ্রুপ প্রতিরোধ গড়ে তুললে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। সংঘর্ষে বিবিএ দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র জাকারিয়া শহীদ নুর হোসেন হলে ও কৃষি বিভাগের ছাত্র মাহমুদুল হাসান মিল্টন দিনাজপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

খুনের ঘটনায় নিহতদের পরিবারের পক্ষ থেকে পৃথক দুটি মামলায় ৪১ জনকে আসামি করা হয়। একইসঙ্গে কোতয়ালী থানার এসআই আব্দুল নুর বাদী হয়ে অজ্ঞাত ৫০-৬০ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। গত বছরের মার্চে মামলাগুলো পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডিতে) স্থানান্তরিত করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here