জামালপুরের সেই ডিসিকে সরিয়ে দিল সরকার

0
1120

আওয়ামী লীগকে পুনরায় নির্বাচিত করে ক্ষমতায় আনার আহ্বান জানিয়ে বক্তব্য দেওয়া জামালপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. ইমরান আহমেদকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। নতুন ডিসি হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস প্রশাসন একাডেমির উপপরিচালক (উপসচিব) মো. শফিউর রহমানকে।

বৃহস্পতিবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের মাঠপ্রশাসন-২ শাখার উপসচিব ভাস্কর দেবনাথ বাপ্পি সাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, জনস্বার্থে জারিকৃত এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে।

গত সোমবার ইমরান আহমেদ জামালপুরের মাদারগঞ্জে এক অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আওয়ামী লীগ সরকারকে পুনরায় নির্বাচিত করে ক্ষমতায় আনার আহ্বান জানান।

মাদারগঞ্জ পৌরসভার নতুন ভবনের উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের প্রশংসা করে ডিসি বলেন, ‘অনেক কষ্টে অর্জিত এই স্বাধীনতা। স্বাধীনতার সফলতা উন্নত যোগাযোগ ও দেশের সার্বিক উন্নয়ন। এই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘যে সরকার এই উন্নয়ন করেছে, এই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার জন্য সেই সরকারকে আবার পুনরায় নির্বাচিত করে আবারও ক্ষমতায় আনতে হবে। এটা হবে আমাদের প্রত্যেকের অঙ্গীকার।

ইমরান আহমেদ বলেন, ‘আপনারা নিজের চোখে দেখে সরকারের প্রতি অকৃতজ্ঞতা করবেন না। উন্নয়ন অব্যাহত থাকবে। এ দেশের উন্নয়ন হতে থাকবে। এই দেশ একসময় অবশ্যই আমার জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলায় পরিণত হবে আশা করি।’ ডিসি বলেন, ‘আমি আরও আশা করি, সামনের নির্বাচনের (আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন) পরে আমাদের আজকের প্রধান অতিথি (মির্জা আজম) মন্ত্রী হিসেবে এই জেলার আরও ব্যাপক উন্নয়ন করবেন। এটা আমি আশা করি এবং আমি বিশ্বাস করি, এটা হবে ইনশাআল্লাহ।

পৌর মেয়র মির্জা কবিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপি, পুলিশ সুপার মো. কামরুজ্জামানসহ আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতারা।

ইমরান আহমেদের সেদিনের বক্তব্যে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বিরক্ত হন। অভিযোগ খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানা যায়। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেনও এ নিয়ে বক্তব্য দেন। তিনি বলেন, ‘নির্বাচন সামনে রেখে একজন ডিসি এমন কথা বলতে পারেন না। তাদের নানা ধরনের প্রশিক্ষণ দিয়ে মাঠে পাঠানো হয়। তবে কেউ বক্তব্য বিকৃত করে প্রচার করেছে কিনা, তাও যাচাই করা হবে। এখন আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্সের (কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা) যুগ; বক্তব্য টুইস্ট করা যায়।

এফএস

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here