Saturday, March 2, 2024
Homeস্পটলাইটএখন সারা দিন রাত মিলে কখন বিদ্যুৎ আসে যায় কেউ জানে না

এখন সারা দিন রাত মিলে কখন বিদ্যুৎ আসে যায় কেউ জানে না

স্টাফ রিপোর্টার: ভয়াবহ লোডশেডিং দেখা দিয়েছে কুড়িগ্রামের পল্লী বিদ্যুৎ লাইন গুলোতে। ভয়াবহ লোডশেডিংয়ের হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছে না কুড়িগ্রাম জেলা শহরও।

সবচেয়ে ভয়াবহ অবস্থা দেখা গেছে কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার ভিতরবন্দ, বামনডাঙ্গা ও রাজাহাট উপজেলার টগরাইরহাটে। পুরো জেলায় লোডশেডিং থাকলেও ভিতরবন্দ, বামনডাঙ্গা ও রাজাহাট উপজেলার টগরােইরহাটে অবস্থা অত্যান্ত ভয়াবহ। ভিতরবন্দ ইউনিয়নে কখন বিদুৎ আসছে কখন যাচ্ছে,কতক্ষনেই বা থাকছে তা সঠিকভাবে বলতে পারছে না কেউই।

আর এতে করে অসহনীয় গরমে চরম বিপাকে পড়েছে আসন্ন এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার পরীক্ষার্থী, সাধারন মানুষসহসহ ব্যাবসায়ীগণ।

তবে অভিযোগ আছ নাগেশ্বরী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির বৈষম্যমুলক বিদ্যুৎ বিতরণের কারণে সবচেয়ে বেশি বঞ্চিত হচ্ছে ভিতরবন্দ লাইনের গ্রাহকরা। এর ফলে এসএসসি পরীক্ষার্থীরা বিদ্যুৎ না পাওয়ায় প্রচন্ড গরমে তাদের পরীক্ষার প্রস্তুতি সঠিকভাবে নিতে পারছে না বলে বিস্তর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সরেজমিন গতকল ১৮/০৮/২২ (বৃহস্পতিবার) থেকে আজ জুমারদিন শুক্রবার ভিতরবন্দ ও টগরাইরহাট লাইনে দেখা যায় বিদ্যুৎ সে যেনো সোনার হরিন। এবং এ খবর লিখা পযন্ত (সকাল ১১.২৬ মিনিট) ভিতরবন্দ ও টগরাইরহাট লাইনে বিদ্যুৎ আসেনি। কখন গেছে তাও কেউ বলতে পারছে না।

ভিতরবন্দ বাজারের ব্যবসায়ী নবী বলেন, সারাদিন ব্যাবসা করি বিদ্যুৎ কখন আসে যায় বলতে পারি না। আর বিদ্যুৎ একটু আসলেও ১০/২০ মিনিট থেকেই চলে যায়।

একই এলাকার মাসুদ,মানিক,ফিরোজ,আঙ্গুর, আনিছ জানান, কখন বিদ্যুৎ আসে কখন যায় আমরা বলতে পারি না। আমরা দ্রুত এর প্রতিকার চাই।

এছাড়া বিদ্যুতের এই ভয়াবহ অবস্থা দেখে অনেককে ফেসবুকে প্রতিবাদমুলক পোষ্ট শেয়ার করতে দেখা গেছে।

স্মরণ কালের ভয়াবহ লোডশেডিংয়ের ব্যাপারে জানতে চাইলে নাগেশ্বরী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির এক লাইনম্যান মুঠোফোনে বলেন, চাহিদা অনুযারী ৪ ভাগের একভাগও বিদ্যুত পাচ্ছি না। কেমনে বিদ্যুৎ দেই বলেন। তিনি একটি ভয়ংকর তথ্য দেন এ প্রতিবেদককে বলেন, এক ইউনিট বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে ৪৫ টাকা খরচ হচ্ছে।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments